Home বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে উদ্যোক্তাদের উৎপাদন প্রয়োজন

বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে উদ্যোক্তাদের উৎপাদন প্রয়োজন

দিন দিন এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ, দেশকে এগিয়ে নিতে উদ্যোক্তাদের উৎপাদন জরুরী বলে মনে করছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গর্ভনর ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন।

মঙ্গলবার রাজধানীর পান্থপথে এসএমই ফাউন্ডেশনে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরষ্কার বিজয়ী উদ্যোক্তাদের অভিজ্ঞতা বিনিময় নিয়ে কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বিজয়ী উদ্যোক্তারা তাদের সফলতার গল্পগুলো বলেন।

ড.মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন বলেন, বাংলাদেশ দিন দিন এগিয়ে যাচ্ছে। তাই বাংলাদেশকে আরো ভালোভাবে গঠন করতে উৎপাদনের কোন বিকল্প নেই। আর এই উৎপাদন সম্ভব হয় আপনাদের মত উদ্যোক্তাদের জন্য। উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য প্রত্যেককেই অনেক সংগ্রাম করতে হয়েছে।

তিনি বলেন, অর্থনীতিতে এসএমই অনেক দূর এগিয়ে গেছেন। এসএমই ফাউন্ডেশন নানা দিক দিয়ে উদ্যোক্তাদের সহায়তা করেছে। বাংলাদেশকে আগানোর জন্য আপনাদেরই কাজ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, নিজেদের উদ্যোক্তা কাতারে পৌঁছাতে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষও আস্তে আস্তে এই পেশায় যুক্ত হচ্ছে। তারা তাদের উৎপাদন বাড়াচ্ছে।

এসময় এস এম ই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন কে এম হাবিব উল্লাহসহ সংস্থার অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এসএমই ফাউন্ডেশনের সুপারিশে বিভিন্ন দেশের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তাদের ৫০ হাজার থেকে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত জামানতবিহীন ঋণ দেয়। এ ঋণের সুদের হার ৯ শতাংশ। এ ক্ষেত্রে অন্য কোনো ফি নেওয়া হয় না।

উদ্যোক্তা নিজস্ব উদ্যোগে ঋণ নিতে গেলে নানা ধরনের ফি দিতে হয়। এর পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটির আওতায় ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো উৎপাদনমুখী ক্ষুদ্র বা মাঝারি কাস্টার বেইজড (চার-পাঁচ কিলোমিটার এলাকার মধ্যে একই ধরনের ৪০-৫০টি প্রতিষ্ঠান থাকলে তাকে কাস্টার বেইজড শিল্পাঞ্চল বলে) শিল্পে ৫ লাখ থেকে ৩০ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ দেয়। জামানতবিহীন এ ঋণেরও সুদের হার ৯ শতাংশ।

ক্ষুদ্র এবং মাঝারী শিল্পের বিকাশে এবং মান উন্নয়নে এসএমই ফাউন্ডেশন একটি গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে থাকে। ক্ষুদ্র এবং মাঝারী শিল্প উদ্যোক্তা এবং বিশেষ করে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য এটি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিভিন্ন প্রশিক্ষণমূলক কর্মসূচী আয়োজন করে থাকে।

দেশের ক্ষুদ্র এবং মাঝারী শিল্প যাতে দেশের দারিদ্র্যতা নিরসনে এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নে বড় অবদান রাখতে পারে সেজন্য এসএমই ফাউন্ডেশন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে থাকে। ২০০৭ সালের ৩০ মে আনুষ্ঠানিকভাবে এসএমই ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা লাভ করে। এটি একটি স্বাধীন এবং অলাভজনক প্রতিষ্ঠান।

হৃদয় সম্রাট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

রং-সুতার স্বপ্ন আঁকে-হৈমন্তী

সভ্যতার শুরু থেকেই নারীর সৌন্দর্য, রুচিশীলতা এবং আভিজাত্যের পরিচয় বহন করে তার পোশাক। আর তাই দেশীয় কাপড়ে নিজেদের স্বকীয়তাকে তুলে ধরতে হৈমন্তীর...

সংগীতে সবচাইতে বড় আয়োজন চ্যানেল আই এর সাথে প্রধান পৃষ্ঠপোষক এসএমই উদ্যোক্তাদের ঐক্য

ডিসেম্বরে ঢাকার একটি অভিজাত হোটেলে প্রদান করা হবে ‘ঐক্য চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ড ২০২০’। ১৫তম এ আসরের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ঐক্য ফাউন্ডেশন।

১৩ টি শাড়ি থেকে লাখপতি নওগাঁর মুসফেরা জাহান

বাবা স্কুল শিক্ষক থাকলেও একটা শাড়ির দোকান ছিল। বাবার দোকানের শাড়ির প্রতি ছোটবেলা থেকে খুন টান ছিল। নিজেও খুব শাড়ি ভালোবাসেন। ব্যবসায়িক...

বিসিকে’র-“হেমন্ত মেলা”

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব জনিত পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) এর উদ্যোগে পাঁচদিনব্যাপী...