কাগজ দিয়ে সজিবের বাহারি রকমের পণ্যের সমাহার

0

মো. সজিব মাধ্যমিক পাশ করেই স্বপ্নের ঢাকা শহরে চলে আসেন। নিজের জমানো স্বপ্নগুলো তুলে ধরতে এবং সেই লক্ষ্যে বিভিন্ন জায়গায় চেষ্টাও চালিয়েছেন।

ছোট বেলা থেকেই ইচ্ছা ছিলো নিজের ইচ্ছা শক্তিকে কাজে লাগিয়ে কিছু একটা করা। হয়তো আমার অনেক কষ্ট হবে কিন্তু  তাতে অন্য আরও অনেকের কর্মসংস্থান তৈরি হবে, মনের আড়ালে এই স্বপ্নগুলো উঁকি দেয় এই উদ্যোক্তার।

উদ্যোক্তার স্বপ্ন জাল বুনাতে লাগলো, প্রথমে তার
বড় আপার কাছ থেকে হ্যান্ডিক্রাফটের কাজ শিখে নেন, ওখান থেকেই তার কাজের হাতে-খড়ি। নিজে নিজে কাগজ দিয়ে বিভিন্ন রকমের ডিজাইন তৈরি করেন। বড় আপার কাছ থেকে কাগজের হরেক রকমের ডিজাইনের সাথে পরিচিত হতে থাকেন।

পড়াশোনার পাঠ চুকিয়েছেন বেশ কয়েক বছর আগে কিন্তু শৈশবের সেই কাগজের সাথে সম্পর্কটা এখনও কাটেনি। উদ্যোক্তা সজিবের গড়ে উঠেছে নিবিড় সম্পর্ক, কাগজ দিয়ে বাহারি রকমের পণ্যের সমাহার তৈরি করেছেন।IMG 20190804 WA0024

কাগজ দিয়ে আরও নিত্য নতুন কি তৈরি করা যায় এক্সপ্লোশন বক্স, ক্রাফট বুক, ওয়েডিং গিফট, বার্থডে গিফট এমন ধরণের গিফট আইটেম দিয়ে শুরু করেন ব্যবসা। বর্তমানে ৫০ ধরণের কাগজের পণ্য তৈরি করছেন। কাঠের পণ্যও তৈরি করেন। নিজের মত করে অংকন করতে পারেন এছাড়া ডেকোরেশন লাইট, ক্যান্ডেলস, মগ ব্যবসায় ভালো সাড়া পাচ্ছেন।IMG 20190804 WA0029

তিনি যখন ব্যবসা শুরু করেন; ব্যবসা করার জন্য পারিবারিক সম্মতি ছিল না। নিজের উদ্যোগে ব্যবসা শুরু করেন, ধীরে ধীরে ব্যবসায় অগ্রগতি আসে।পরে সবাই এগিয়ে আসেন। তার মা সন্তানের জন্য কিছু মূলধন দেন, মায়ের দোয়ায় এতো দূর এগিয়ে এসেছেন।

সজিব উদ্যোক্তা বার্তাকে বলেন, মা ছায়ার মতো আমার সাথে থেকে সাহায্য করতেন। এরপর বি’ইয়া সদস্য হই। বি’ইয়া এর মাধ্যমে ভালো ভাবে ব্যবসার প্রচার প্রসার ঘটে।

IMG 20190804 WA0026কাগজের প্রতি উদ্যোক্তার এক ধরণের মায়া আছে।উদ্যোক্তা বলেন, “আমার তৈরি পণ্য সবাই গিফট দেয় তার ভালোবাসার মানুষকে, বন্ধু দিবসে, বার্থডেতে দেখে আমার খুব ভালো লাগে।”

তিনি বলেন, “ডেকোরেশনের অভাবে অনেকে ভালোভাবে গিফট উপস্থাপন করতে পারে না কিন্ত আমার তৈরি পণ্য দিয়ে ভালোভাবে উপস্থাপন করা যায়, গিফট টা ভালোভাবে ডেকোরেশন করা যায়।”

IMG 20190804 WA0027 1‘কাগজের কাজে একটা আলাদা মনন দিয়েছি
একটা কাগজের বাক্সের মধ্যে কেউ চাইলে অনেক গিফট সামগ্রী দিতে পারে।’

বাংলাদেশ ইয়ুথ এন্টারপ্রাইজ এ্যাডভাইজ  এন্ড হেল্প সেন্টারের(বি’ইয়া) ট্রেনিং নেন উদ্যোক্তা সজিব। এই ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে তিনি শিখেছেন কিভাবে ব্যবসা করতে হয়, কিভাবে ব্যবসার পরিকল্পনা তৈরি করতে হয় এবং কিভাবে মার্কেটিং  করতে হয়। এছাড়াও ট্রেনিং করেছেন এসএমই ফাউন্ডেশনে ও যুব উন্নয়ন ফাউন্ডেশনে এবং সেখানে তিনি অনেক সুনাম কুড়িয়েছেন।

কোরবান আষাঢ় 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here