হিমালয়ের বৃক্ষপ্রেম

0
উদ্যোক্তা খায়রুল আলম হিমালয়

৩৪ জেলায় চারা পাঠিয়েছেন বৃক্ষায়ণের তরুণ উদ্যোক্তা হিমালয়। ভিন্ন ভিন্ন ফল, ফুল, সবজির চারাই সাজানো তরুণ উদ্যোক্তা খায়রুল আলম হিমালয়ের বৃক্ষায়ণ।

কেউবা চারা নিচ্ছেন ফুল বাগান করার জন্য, কেউবা ছাদকৃষির জন্য। এভাবেই বছর হতে না হতেই দেশের ৩৪ জেলায় বৃক্ষায়ণের চারা পাঠিয়েছেন তিনি।

দেড় বছর পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু হওয়ার পর যখন দেখা যাচ্ছে অসংখ্য শিক্ষার্থী ঝরে পড়েছে। আবার এটাও দেখা যাচ্ছে এই সময়কে কাজে লাগিয়ে অনেক তরুণ উদ্যোক্তা হয়েছেন।

brikkho3

উদ্যোক্তা বার্তায় আজ এমনই এক তরুণ উদ্যোক্তার কথা জানানো হবে যিনি লকডাউন এর সময়টাকে যথোপযুক্ত ভাবে কাজে লাগিয়ে নিজেকে তৈরি করেছেন বৃক্ষপ্রেমিক হিসেবে।

উদ্যোক্তা খায়রুল আলম হিমালয় ফরিদপুরের সন্তান। বর্তমানে রাজেন্দ্র কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষে পড়াশোনা করছেন।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ায় শিক্ষার্থীরা যখন একঘেঁয়েমি জীবন কাটাচ্ছিলো করোনার প্রথম লকডাউনে, তখন এই তরুণ ভিন্ন একটা চিন্তা করলেন। সকলের ঘরে ঘরে চারা গাছ পৌঁছে দেওয়ার পরিকল্পনা করলেন তিনি। যাতে সকলে বৃক্ষরোপণ করে এবং পৃথিবী অক্সিজেন সংকটের হাত থেকে রক্ষা পায়। সে পরিকল্পনা থেকে ফেসবুকে ‘বৃক্ষায়ণ’ নামে একটু পেজ চালু করেন তিনি।

brikkho4

খায়রুল আলম হিমালয় জানালেন, ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে পরিবারের সহযোগিতায় ১৫ হাজার টাকা মূলধন নিয়ে বৃক্ষায়ণের যাত্রা শুরু করেন হিমালয়। মা এবং এক বন্ধু সকল কাজে হিমালয়কে সাহস যুগিয়ে চলছে নিরন্তর।

তরুণ উদ্যোক্তা হলেও বেশ পরিশ্রমী হিমালয়। নিজের উদ্যোগকে আরো সামনে নিয়ে যেতে নিজ এলাকা এবং আশপাশের সকল নার্সারিতে নিয়মিত যান তিনি এবং বিভিন্ন ধরনের নতুন নতুন তথ্য এবং চারা সেখান থেকে সংগ্রহ করেন। নার্সারিগুলো থেকে চারা সংগ্রহ করে বছর হতে না হতেই ইতোমধ্যে ৩৪ টি জেলায় চারা পৌঁছে দিয়েছেন এই তরুণ। বর্তমানে তার তিন সহযোদ্ধা আছে যারা বৃক্ষায়ণের কাজে হিমালয়ের সঙ্গে কাজ করেন।

brikkho2

বৃক্ষায়ণের কোন চারাটির বেশি চাহিদা? এর জবাবে উদ্যোক্তা বলেন, ‘বিভিন্ন মৌসুমে বিভিন্ন চারার চাহিদা বেশি থাকে। কিছু দিন আগে প্রচুর চাহিদা ছিলো ক্যাপসিকামের। এখন এর সঙ্গে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অসংখ্য ফুল, ফল এবং বিভিন্ন সবজির চারার অর্ডার আসছে প্রতিনিয়ত। তবে ছাদবাগানের জন্য পেয়ারা, কমলা ফুলের মধ্যে গোলাপ, জবার ব্যাপক চাহিদা।’

বিসিক থেকে ‘অনলাইন ঈদ হাট-২০২১’ এ সেরা উদ্যোক্তা পুরষ্কার লাভ করেন তরুণ উদ্যোক্তা হিমালয়। বৃক্ষায়ণ নামে একটি অ্যাপ চালু করে দেশের প্রতিটি কোণায় বৃক্ষায়ণের চারা পৌঁছে দিতে চান এবং সকলকে বৃক্ষরোপণের গুরুত্ব সম্পর্কে জানাতে চান হিমালয়।

তামান্না ইমাম
উদ্যোক্তা বার্তা, রাজশাহী

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here