ভারতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি এবং এপিজে আবদুল কালাম রাষ্ট্রপতির অনুপ্রেরণায় প্রতিষ্ঠিত ‘জঙ্গিপুর মানব শিক্ষা গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট’। সংগঠনটির প্রধান কার্যালয় প্রয়াত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির বাড়িতে পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমে।

গত ২০ ডিসেম্বর ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটির ইনস্টিটিউটে হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সমাজ কল্যাণমূলক কাজের জন্য পুরস্কারে মনোনীত হন উদ্যোক্তা খুরশীদা জাহান।

উদ্যোক্তা খুরশিদা জাহান আনন্দের অনুভূতি জানিয়ে বলেন, ‘জঙ্গিপুর মানব শিক্ষা গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট’ পশ্চিমবঙ্গ ভারত থেকে একটি পুরষ্কার পেয়েছি। ২০ ডিসেম্বর ‘বিশ্ব মানব শিক্ষা সমাজ সেবা রত্না’ হিসাবে মনোনীত করে। কিন্তু কোভিড -১৯ এর কারণে সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারিনি। আমি বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সিনিয়র নেতাদের জন্য কৃতজ্ঞ তিনি। তারা আমার কাছে পুরষ্কারটি নিয়ে এবং আন্তরিকভাবে আমার কাছে হস্তান্তর করেছে। নিজের ব্যবসা চালিয়ে ও নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য কাজ করে যাচ্ছি কারুশৈলী কুটির শিল্প নারী উন্নয়ন সংগঠন ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ঢাকা বিভাগের সহ-সভাপতি পদে থেকে। এ ছাড়া বাংলাদেশ যুব উদ্যোগ পরামর্শ ও সহায়তা কেন্দ্র (বাইয়াহ)
সামাজিক সেবা সংগঠনের মেন্টর হিসেবে কাজ করছি। এই দু’টি প্রতিষ্ঠানসহ নানাভাবে নতুন উদ্যোক্তাদের মোটিভেশন ও ব্যবসা পরিচালনার জন্য পরামর্শ দিয়ে পাশে আছি। এই পুরস্কার আমাকে বিশ্ব মানব সমাজ সেবা ইনস্টিটিউট থেকে প্রদান করেছে, তাদের আন্তরিকভাবে আমি ধন্যবাদ জানাই।

0202

আন্তর্জাতিক রত্নপ্রাপ্ত উদ্যোক্তা খুরশিদা আরো বলেন, এই সংগঠন থেকে দেশে-বিদেশে ও বাংলাদেশ, নরওয়ে, শ্রীলঙ্কানসহ বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং সমাজের আলোকিত মানুষদেরকে অর্থাৎ ডক্টরেট ডিগ্রি করা এবং সম্মানসূচক সমাজসেবা রত্ন উপাধি দেওয়া হয়। আমার নামটি প্রস্তাব করেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় কমিটির অথরিটির চারজন মেম্বার। আমি হয়তোবা এধরনের অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার জন্য সেবামূলক কাজ করি না। যদিও দেশীয় অনেক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছি। কিন্তু কলকাতার মত শহরের এ রকম আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড পেয়ে অনেক গর্বিত অনুভব করছি। সমাজের অবদানের জন্য যে তুলনামূলক একটি সম্মান দেওয়া হচ্ছে তা আসলে মূল্যহীন।

পরিশেষে উদ্যোক্তা খুরশিদা জাহান বলেন, যারা বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে তাদেরকে এই রত্নটি দেওয়া হয়েছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রথমে অবাক হলেও খুব ভালোলাগে পরে। তিনি জানান, অ্যাওয়ার্ড পাওয়ায় আরো কাজের আগ্রহ বেড়ে গিয়েছে। ১০ বছর কাজ করার পরে শুধু নিজের ব্যবসাই নয়, তিনি নারী উদ্যোক্তাদের জন্য মোটিভেশনাল কিছু কাজ এবং ব্যবসায়ী ম্যানেজমেন্ট ভিত্তিক আরো বেশি পরিশ্রম করে যাওয়ার কথা বলেছেন।

মেহনাজ খান
উদ্যোক্তা বার্তা ঢাকা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here