উদ্যোক্তা সুজিত সাধ্য

এই মেশিনে প্রতি মিনিটে ২৪ থেকে ৪০টি কয়েল উৎপাদন করা যায়। উপকরণ দিয়ে দেয়া হলে স্বয়ক্রিয়ভাবে কয়েল তৈরি হয়ে বেরিয়ে আসবে। তৈরিকৃত কয়েল কনবেয়ার বেল্টের মাধ্যমে কাটার মেশিনে পৌঁছে যায়। অপারেটর কাটিং হওয়া কয়েল সংগ্রহ করে ট্রেতে নিবেন। মেশিন থেকে অপারেটরের কয়েল সংগ্রহের দক্ষতার উপর ভিত্তি করে মেশিনের গতি নির্ধারণ করতে হবে। সম্পূর্ণ র’ ম্যাটেরিয়ালগুলো চায়না থেকে আনা আনা হয় বলে জানিয়েছেন গ্রীন স্টার কেমিক্যাল এন্ড কনজ্যুমার প্রােডাক্টের উদ্যোক্তা সুজিত সাধ্য।

koyel6

উদ্যোক্তা সুজিত সাধ্য তার প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে শুরুতে জানান, গ্রীন স্টার কেমিক্যাল এন্ড কনজ্যুমার প্রােডাক্টের অবস্থান নেত্রকোনার চল্লিশায় রাজেন্দ্রপুরে। গ্রামের বাড়ি হলো নেত্রকোনার কলমাকান্দা বাজার। বড় হয়েছেন কলমাকান্দায়। ভৈরব উপজেলায় চাকরি করেছিলেন এয়াকুব এন্ড মাহবুব কেমিক্যাল কোম্পানিতে। চাকরি করেছেন ১৯৯৭ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত।

koyel4

উদ্যোক্তা ব্যবসা শুরু সম্পর্কে জানান, ২০১৮ সাল থেকে কয়েল কোম্পানি খােলার চিন্তা করেন এবং নিজে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার চেষ্টা করেন। পাশাপাশি এলাকার কিছু বেকার লােকের কর্মসংস্থান করে দেন। প্রথম অবস্থায় যৌথভাবে কয়েল কোম্পানি করার উদ্যোগ নেন। পরে নিজেই একটি কয়েল কোম্পানিতে অল্প করে কয়েল তৈরির কাজ শুরু করেছিলেন। বর্তমানে নেত্রকোনা রাজেন্দ্রপুর চল্লিশা বিসিকে কয়েল কোম্পানি ভাড়া নিয়ে কাজ শুরু করেন।

তিনি বলেন, আমাকে মেসার্স মা ফাতেমা কয়েল ফ্যাক্টরির মালিক সাইদুল ইসলাম রুবেল সার্বিক সহযােগীতা করেছেন। তার কোম্পানিতেই আমাকে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সুযােগ দেন। মাত্র পঞ্চাশ হাজার টাকা পুজি এবং অন্য এক লােকের কাছ থেকে তিন লক্ষ টাকা ধার নিয়ে গ্রীন স্টার প্রতিষ্ঠানটি শুরু করি।

koyel2

সুজিত সাধ্যের জানান, কোম্পানিতে শুধুমাত্র মশার কয়েল উৎপাদন করেন। এর মধ্যে ধূপ কয়েল, গুরুদেব কয়েল, এটমকিং কয়েল এবং লকডাউন মশার কয়েল তৈরি করছেন। তার কারখানায় কর্মীসংখ্যা ৩০ জন।

বাংলাদেশে চার থেকে পাঁচটি জেলার কিছু কিছু উপজেলায় মশার কয়েল সরবরাহ করে থাকেন তিনি। গ্রীন স্টারের মাসিক উৎপাদন ক্ষমতা ১৫০০ কার্টন। তার কারখানায় বিভিন্ন ফ্লেভারের যেমন গোলাপ, বেলি, লেমন ইত্যাদি কয়েল তৈরি করা হয়।

koyel1

উদ্দেশ্য প্রসঙ্গে এই উদ্যোক্তা বলেন, নিজে প্রতিষ্ঠিত হওয়া এবং এলাকার গরীব বেকার পুরুষ-মহিলাদের কর্মসংস্থান করা তার লক্ষ্য ছিলো। মশা নিধন এবং ভবিষ্যতে ডেঙ্গুর কবল থেকে দেশকে রক্ষা করার চেষ্টা করবেন বলে জানান সুজিত সাধ্য।

মেহনাজ খান
উদ্যোক্তা বার্তা, ঢাকা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here