শাঁওইল হ্যান্ডলুম শিল্প ক্লাস্টারটি বস্ত্র শিল্পের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের বস্ত্র শিল্পের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ এ দেশের ঐতিহ্যবাহী হস্তশিল্প। ৮০-র দশকে বগুড়া শহরের অদূরে আদমদীঘি উপজেলায় কিছু কিছু গ্রামে হস্তচালিত তাঁতের মাধ্যমে প্রথমে সোয়েটার, মাফলার এবং পরে চাদর, বেডশীট প্রভৃতি উৎপাদন শুরু হয়।

শাঁওইল বাজারকে কেন্দ্র করে আশেপাশের আরো অনেকগুলো গ্রাম নিয়ে এই ক্লাস্টারটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে। বর্তমানে এই ক্লাস্টারে প্রায় ৬ হাজার থেকে ৭ হাজার তাঁতি, ১৫শত সুতা ব্যবসায়ী ও দোকানদারসহ প্রায় ১০ হাজার লোক প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে কর্মরত আছে। এই ক্লাস্টারটির উদ্যোক্তারা তাঁত শিল্পের পাশাপাশি স্বল্পমূল্যে গার্মেন্টস এর ঝুট থেকে সুতা প্রস্তুত করে তা এই ক্লাস্টারের তাঁতিদের জোগান দিচ্ছে।

বার্তা ৬৬ 1

মূলত এই ক্লাস্টারটির উদ্যোক্তাদের জন্য এসএমই ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত ৩ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। ‘পণ্য বাজারজাতকরণ ও বিক্রয় বৃদ্ধির কৌশল’ শীর্ষক এই প্রশিক্ষণ আয়োজন করা হয়েছে ২৬ থেকে ২৮ আগস্ট ২০২০। প্রথম দিনে সকাল ১০ টা থেকে ১টা পর্যন্ত যেখানে প্রশিক্ষণার্থীদের পরিচয় ও কর্মশালার প্রয়োজনীয়তা, কভিড ১৯ স্বাস্থ্য সচেতন ও তার প্রয়োজনীয়তা, অগ্নিনির্বাপক বিষয়ে সচেতনতা, মানসিক চাপ কি, কিভাবে তা জয় করতে হয় এবং বর্তমান বাজার ব্যবস্থার ধরণ ও অবস্থান।

দ্বিতীয় দিনে সকাল ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত। যেখানে প্রথম দিনের আলোচনার সারসংক্ষেপ, আধুনিক বাজার ব্যবস্থা কি ও কিভাবে বাজার সম্প্রসারণ করতে হয়, বাজারজাতকরণ কি, বিক্রয় প্রক্রিয়া কি ও কিভাবে বৃদ্ধি করতে হয়, বিক্রয় বৃদ্ধির কৌশল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

বার্তা ৫৬

তৃতীয় দিন সকাল ১০ টা থেকে ১টা পর্যন্ত। প্রথম ও দ্বিতীয় দিনের সারসংক্ষেপ, কাস্টমারকে পণ্য কিনতে উৎসাহিত করার সর্ব গৃহীত কৌশল, কাস্টমারের সাথে যোগাযোগ দক্ষতা বৃদ্ধির বিশেষ কৌশল, কর্মশালা সম্পর্কে প্রশিক্ষণার্থীদের প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে ধারণা দেয়া হয়। উক্ত প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষক হিসেবে ছিলেন ফিউচার আইকনের প্রতিষ্ঠাতা ইউসুফ ইফতি।

ডেস্ক রিপোর্ট, উদ্যোক্তা বার্তা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here