প্রাকৃতিক উপাদানের গুণাগুণ অক্ষত রেখে গ্রাহকের কাছে শতভাগ বিশুদ্ধ স্কিন ও হেয়ার কেয়ারসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে অর্গানিক কসমেটিকস ব্র্যান্ড রিবানা।

চারটি স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টের পাশাপাশি রিবানা অর্গানিক দুটি হেয়ার কেয়ার প্রোডাক্টও বাজারে এনেছে। নারকেল তেল এবং ক্যাস্টর অয়েল।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে ইতিমধ্যে গ্রাহকের ব্যাপক সাড়া পেয়েছে অরগানিক কসমেটিকস ব্র্যান্ড রিবানা। প্রাকৃতিক উপাদানে যারা ত্বকের যত্ন নিতে পছন্দ করেন, তাদের জন্য বলা যায়, রিবানা যেন একটি বিশ্বাসের নাম।

২০১৫ সালে অর্গানিক কসমেটিকস ব্র্যান্ড রিবানা প্রতিষ্ঠা করেন মো. ওয়াহিদুজ্জামান সাদী। বর্তমানে তিনি সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ওয়াহিদুজ্জামান সাদী নিজে একজন ফার্মাসিস্ট। বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভ (ইউডা) থেকে ফার্মেসি বিভাগে অনার্স ও মাস্টার্স করেন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ করেন।

ribana4

শনিবার বিকালে উদ্যোক্তা বার্তার পক্ষ থেকে অর্গানিক কসমেটিকস ব্র্যান্ড রিবানার প্রতিষ্ঠাতা মো. ওয়াহিদুজ্জামান সাদীর সঙ্গে কথা হয়।

প্রাকৃতিক রূপচর্চার আয়না রিবানার পেছনের কথা জানতে চাইলে ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, ‘‘আমাদের দেশে কেমিক্যালযুক্ত পণ্যের প্রচার ও প্রয়াসটা বেশি। সব পণ্যগুলোই চীন, থাইল্যান্ড থেকে আসে। দেশীয় স্কীন কেয়ার ব্র্যান্ড অনেকটাই কম। আমাদের উচ্চ মধ্যবিত্তদের দেশের বাইরের পণ্যের প্রতি ভালোবাসাটা বেশি।’’

‘আমাদের দেশীয় আয়ুবের্দসহ অর্গানিক পণ্যগুলো যে ভালো সেটা বুঝতে পেরেই আমরা রিবানা স্কিন কেয়ারের জন্য কাজ শুরু করি।’

ribana6

চ্যালেঞ্জ থেকেই যাত্রা শুরু
ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, ‘‘আমার এক বান্ধবীর স্বামী যুক্তরাজ্য থেকে ফিরে আমাকে একটা সাবান উপহার দেন। স্বাভাবিকভাবে আমি খানিকটা বিচলিত হই, সাবান গিফট পেয়ে। পরে আমি গুগল করে দেখি সাবানটার মূল্য কমপক্ষে তিন হাজার টাকা। সাবানটি ছিল অর্গানিক, হোম মেড এবং প্রিমিয়াম ব্র্যান্ডের।
এরপর থেকেই বিষয়টা আমার মাথায় গেঁথে যায়, আমাদের নিজস্ব কাঁচামাল, অর্গানিক নানান উপাদান থাকার পরও কেন আমরা অর্গানিক সাবান তৈরি করতে পারব না। তখন থেকে গবেষণা করতে থাকি। এই ছোট্ট চ্যালেঞ্জটা আমি গ্রহণ করি এবং সাফল্যের দেখা পাই। এখান থেকেই মূলত রিবানার যাত্রা শুরু।’’

ribana1

রিবানার পাওয়ারহাউজ যারা
বর্তমানে রিবানার সঙ্গে ৩৭ জন কর্মী যুক্ত আছেন বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী ওয়াহিদুজ্জামান। তিনি বলেন, আমাদের বেশকিছু গ্রামের কৃষক ও মহিলারা আছেন তাদের আমরা পাওয়ারহাউজ বলি। মূলত তাদের কাছ থেকে আমরা শতভাগ বিশুদ্ধ কাঁচামাল সংগ্রহ করি।যেমন: ছাগলের দুধ সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া থেকে, নিমের বিচি রংপুর ও ফরিদপুর থেকে, বাগেরহাট থেকে নারকেল তেল আমরা সংগ্রহ করি। বর্তমানে আমরা পাঁচ’শর ওপরে পরিবারের সঙ্গে কাজ করেছি। এছাড়াও আমরা জাফরানটা ইরান থেকে নিচ্ছি।

অল্প পণ্য তৈরিতে সন্তুষ্ট রিবানা
রিবানার প্রতিষ্ঠাতা ওয়াহিদুজ্জামান বললেন, ‘‘আমরা অল্প পণ্য তৈরি করি এবং তা গ্রাহকের কাছে বিক্রি করি। রিবানা প্রতিটি প্রডাক্টের পি এইচ লেভেল, ওজনের মাত্রা এবং প্যাকেজিংয়ের প্রতিটি ধাপে সর্বোচ্চ গুণগত মান বজায় রাখে। উৎপাদনের সময় প্রতিষ্ঠানটি নিশ্চিত করে যেন প্রাকৃতিক উপাদানগুলোর আসল পুষ্টিগুণ পুরোটাই বজায় থাকে।’’

ribana3

‘‘নারকেল তেল, ক্যাস্টর অয়েল, নিম, গোট মিল্ক কিংবা স্যাফরনের মতো অর্গানিক উপাদানগুলো আরামদায়ক অনুভূতি দেওয়ার পাশাপাশি পরিমিত পুষ্টি জোগায়। ময়শ্চার ধরে রাখে। আর এই সব কটি উপাদানই পাওয়া যাবে রিবানার ভিন্ন ভিন্ন প্রোডাক্টে।’’

‘‘বর্তমানে ছয়টি প্রডাক্ট নিয়ে কাজ করছি আমরা। এগুলোর মধ্যে তারা স্যাফরণ গোটস মিল্ক সোপকে তাদের ‘স্টার প্রোডাক্ট’ বলে আখ্যায়িত করে। এর জনপ্রিয়তার মূল কারণ এই সাবান সব ধরনের ত্বকে মানিয়ে যায়।’’

তিনি বলেন, ‘‘রিবানার সোপ কিংবা অয়েল তৈরিতে প্রয়োজনীয় বাকি সব উপাদান যেমন- হিমালয়ান পিঙ্ক সল্ট, সি সল্ট, আমন্ড অয়েল- সবই শতভাগ প্রাকৃতিক ও হালাল।’’

ribana8

রিবানার শুভেচ্ছাদূত অভিনেত্রী পূর্ণিমা
আনুষ্ঠানিকভাবে রিবানার শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন অভিনেত্রী পূর্ণিমা। সম্প্রতি রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে এক আড়ম্বরপূর্ণ আয়োজনের মাধ্যমে রিবানার সঙ্গে অভিনেত্রী পূর্ণিমার চুক্তি স্বাক্ষর সম্পন্ন হয়।

পণ্যের প্রচারদূত হিসেবে অভিনেত্রী পূর্ণিমা বলেন, ‘আমি রিবানার কিছু পণ্য ব্যবহার করেছি। একটা দেশি ব্র্যান্ড এত ভালো মানের কসমেটিকস বানাচ্ছে দেখে আমি মুগ্ধ হয়ে গেছি।’

ইউএনডিপি’র মেন্টরশীপে রিবানা
ইউএনডিপির ইয়ুথ কোল্যাব প্রোগ্রামের দ্বিতীয় ধাপে বর্তমানে অবস্থান করছে রিবানা।
ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, আমরা একটা আবেদন করেছিলাম, পরে ইউএনডিপি আমাদের টোটাল বিজনেসটা দেখেই আমাদের সিলেক্ট করেন। এরপর থেকেই তারা আমাদের মেন্টরশীপ দিচ্ছেন। এছাড়াও নানান সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছেন।

ribana5

স্যাফরণ গোটস মিল্ক সোপ
রিবানার সবচেয়ে জনপ্রিয় ‘স্যাফরণ গোটস মিল্ক সোপ’। এই সাবানের প্রধান দুটি উপকরণ হচ্ছে জাফরান ও ছাগলের দুধ। অভিজাত জাফরান বিভিন্ন অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও ভিটামিনের কারণে ত্বক উজ্জ্বল করে। নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের দাগ ও কালচে ভাব দূর হবে। সেই সঙ্গে বলিরেখা ও পিম্পল/অ্যাকনের স্পট দূর করবে। সোপ বেজ হিসেবে ছাগলের দুধ ব্যবহার করার মূল কারণ, এটি ত্বককে দীর্ঘক্ষণ ময়েশ্চারাইজড রাখে। তা ছাড়া ছাগলের দুধ ন্যাচারাল এমোলিয়েন্ট হিসেবে সুপরিচিত। কারণ এটি ত্বককে মসৃণ করে ও আর্দ্রতা ধরে রাখে। এ ছাড়া এ সাবানে অলিভ ওয়েল, সুইট আলমন্ড ওয়েল, নারকেল তেল ও পিংক সল্ট ব্যবহার করা হয়েছে। রিবানার সাবানগুলো কোনো ধরনের প্রিজারভেটিভ, সুগন্ধি ও রংমুক্ত। এই সাবানের দাম পড়বে ৯৫০ টাকা (১২০ গ্রাম)।

স্যাফরণবিহীন গোটস মিল্ক সোপ বার্ধক্যের ছাপ পড়া থেকে ত্বককে বাঁচায়। এ ছাড়া শুষ্ক ত্বক কিংবা একনের জন্য এই সাবান অতুলনীয়। এর দাম পড়বে ৫৫০ টাকা (১২০ গ্রাম)।

ribana2

অ্যাক্টিভেটেড কার্বন সোপ
তৈলাক্ত ত্বকের জন্য বিশেষভাবে তৈরি রিবানা ‘অ্যাক্টিভেটেড কার্বন সোপ’। পরিবেশের দূষণ ও প্রতিদিন চারদিকের ময়লা আমাদের যে–কারও ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। শুধু তা–ই নয়, একনে বা পিম্পল প্রবলেমের শুরুটাও হয় এখান থেকেই। তাই এ ধরনের সমস্যা মাথায় রেখে চারকোল ও নিম অয়েলের সমন্বয়ে তৈরি রিবানা অ্যাক্টিভেটেড কার্বন সোপ। নিম অয়েলের বিভিন্ন ফ্যাটি অ্যাসিড, অ্যান্টি–অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল গুণাগুণ একত্রে, ব্রণ বা অ্যাকটিভ পিম্পল দূর করতে সাহায্য করে। অন্যদিকে, চারকোল ত্বকের দূষণ শুষে বের করে ফেলে। তাই নাকের আশপাশে ব্ল্যাক হ্যাডস ও হোয়াইট হ্যাডসের সমস্যা থেকেও রেহাই মেলে। তবে ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক করে ফেলবে ভেবে ঘাবড়ানোর কিছু নেই। কারণ, ত্বক সম্পূর্ণভাবে ময়েশ্চারাইজড রাখার জন্য এতে খাঁটি নারকেল তেলও ব্যবহার করা হয়েছে।এর দাম পড়বে ৩৫০ টাকা (৯৫ গ্রাম)। মেকআপ তুলে ফেলার জন্যও রিবানা সাবান তৈরি করে, যা এক মিনিটের মধ্যেই মুখের খুব ভারী মেকআপ তুলে ফেলতে পারে। এর দাম ৪৫০ টাকা (৯৫ গ্রাম)।

ribana7

আর্গানিক নারকেল তেল ও ক্যাস্টর অয়েল
স্কিনকেয়ার প্রডাক্টের পাশাপাশি রিবানা অর্গানিক দুটি হেয়ার কেয়ার প্রডাক্টও বাজারে এনেছে। নারকেল তেল এবং ক্যাস্টর অয়েল। এই নারকেল তেল চুলকে খুশকিমুক্ত করার পাশাপাশি চুল পুনরায় গজাতে এবং চুলের আগা ফাটা রোধে সাহায্য করে। চুলের নিষ্প্রাণ ভাব দূর করে দেয়। এর দাম ৩৫০ টাকা (২০০ মিলি)। ক্যাস্টর অয়েল চুলের পাশাপাশি চোখের পাপড়ি এবং আইব্রাও ঘন করতে ভূমিকা রাখে। তবে এটা সরাসরি চুলে ব্যবহারের জন্য নয়। ক্যাস্টর অয়েলের দাম ৪৫০ টাকা (২০০ মিলি)।

রিবানা নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানতে চাইলে কর্ণধার ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, ‘‘সামনের বছরের মধ্যে আলিবাবা, ই-বে, আলিএক্সপ্রেস কিংবা আমাজনের মতো ওয়েবসাইটগুলোতে রিবানাকে পৌঁছে দেওয়ার ইচ্ছা আছে আমাদের। এ ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের কিছু মার্কেটেও রিবানাকে পরিচিত করে তোলার স্বপ্ন দেখি।’’

ডেস্ক রিপোর্ট, উদ্যোক্তা বার্তা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here