উদ্যোক্তা নাঈমা নিজের রং তুলিতে আঁকেন নিজের স্বপ্নের উদ্যোগ

0

রংতুলি দিয়ে নিজের স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথ আঁকছেন উদ্যোক্তা জান্নাতুন নাঈমা। রঙ খেয়ালী মানেই রঙের ভুবন। রঙ খেয়ালীর রঙে রঙিন হোক সকলের ভুবন, এমনটি বলছিলেন রঙ খেয়ালীর স্বত্ত্বাধিকারী জান্নাতুন নাঈমা।

শাড়ি-পাঞ্জাবি, কুর্তি, কামিজ, ইয়োক, কাঠ, ক্লে দিয়ে তৈরি ভিন্ন ভিন্ন নান্দনিক ডিজাইনের গহনা তৈরি হচ্ছে রং খেয়ালীতে। তবে প্রধান আকর্ষণ হ্যান্ডপেইন্ট ম্যাচিং ফ্যামিলি ড্রেস এবং কাপল সেট।

‘কাজ শেখা কার কাছ থেকে’ – এমনটি জানতে চাইলে তিনি উদ্যোক্তা বার্তাকে জানান, ‘মা-চাচিদের দেখে পোশাকে হাতের কাজ শেখার হাতেখড়ি হয়েছিল। এবং ছোট থেকেই রংতুলি আমার খুবই পছন্দের ছিল। ভীষন পছন্দ করতাম আঁকাআকি। সেখান থেকে রংতুলির কাজ শেখা।’

ফরিদপুর সানরাইজ প্রি ক্যাডেট স্কুলে চিত্রাঙ্কন শিক্ষক হিসেবে কর্মরত থাকাবস্থায় বিবাহিত জীবনে পদার্পন করেন নাঈমা। কোভিড-১৯ এর হানায় যখন সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেল, তখন জান্নাতুন নাঈমাও আর পাঁচজনের মতো বাসায় চার দেয়ালের মাঝে আবদ্ধ ছিলেন।

2 28

২০১৯ সাল থেকে নাঈমার ইচ্ছে ছিল চাকরির পাশাপাশি উদ্যোক্তা হবেন। কিন্তু বিভিন্ন কারণে তা আর হয়ে উঠছিল না। কোভিড সিচুয়েশনে পরিবার এবং সামাজিক পাতায় যেন সারাদিনের সঙ্গী ছিল তার। সামাজিক পাতায় রোজই তার চোখে পড়তে থাকে অনলাইনের মাধ্যমে নারীদের স্বাবলম্বী হয়ে উঠার বিষয়টি। তার যেহেতু আগে থেকেই ইচ্ছে ছিল উদ্যোক্তা হওয়ার, তাই বেশ কৌতুহল নিয়ে নিয়মিত তিনি নারীদের বিভিন্ন উদ্যোগ, তাদের সফলতার গল্প পড়তে থাকেন, অনুপ্রেরণা পান তাদের দেখে। সিদ্ধান্ত নেন কোভিড সিচুয়েশনে স্কুল বন্ধ থাকার এই সুযোগটা শুয়ে বসে না কাটিয়ে কাজে লাগাবেন অনলাইনে উদ্যোগ গ্রহণের মধ্যে দিয়ে।

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে বাবার অসুস্থতা ঘিরে বিরাট ধাক্কার সম্মুখীন হলেন নাঈমা, মনকে শক্ত করে সিদ্ধান্ত নিলেন ‘মেয়ে নয় বাবার বড় সন্তান হতে হবে আমায়’। এরই মাঝে নারী উদ্যোক্তার খোঁজে (ইজ অব উই) গ্রুপে যুক্ত হন নাঈমা। সেখানে নারীদের এগিয়ে যাওয়া দেখে আরো বেশি অনুপ্রাণিত হন তিনি। ২০২০ সালে পাঁচ হাজার টাকা পুঁজি নিয়ে উদ্যোক্তা হওয়ার পথে পা বাড়ালেন জান্নাতুন নাঈমা। সামাজিক পাতায় ‘রঙ খেয়ালী বাই নাঈমা’ নামে একটি পেজ চালু করলেন তিনি।

3 26

পরিবারের সহযোগিতায় নিজেই সবটা সামলাচ্ছেন নাঈমা। বেশিরভাগ সময় নিজের তৈরি পণ্যের মডেলও হোন নিজেই। তবে মাঝে মাঝে নাঈমার বন্ধু-বান্ধবরাও রঙখেয়ালির পণ্যের মডেল হিসেবে কাজ করেন। অল্প সময়েই সারা দেশে নাঈমার রঙখেয়ালীর পণ্য স্থান দখল করছে। এছাড়াও দেশের বাইরে চীন এবং জাপানেও পৌঁছে গেছে জান্নাতুন নাঈমার রঙখেয়ালীর পণ্য।

উদ্যোক্তা জান্নাতুন নাঈমার জন্ম থেকে বেড়ে উঠা ফরিদপুরের উত্তর আলিপুরে। ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজে উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগ থেকে গ্রাজ্যুয়েশন শেষ করেছেন তিনি।

সম্প্রতি এই উদ্যোক্তা রঙ খেয়ালীতে হ্যান্ডপেইন্ট প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও চালু করেছেন। যাতে অন্যরাও তাদের কর্মসংস্থান খুঁজে পায়। নারী উদ্যোক্তা জান্নাতুন নাঈমা ২০২১ সালে বিসিক আয়োজিত ‘অনলাইন ঈদ হাট’ এ অংশ নিয়ে দেশসেরা উদ্যোক্তার পুরষ্কার লাভ করেন। পাঁচ হাজার টাকা পুঁজি আজ লাখের কাতারে।

তামান্না ইমাম,
উদ্যোক্তা বার্তা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here