‘আপন ঘর’-এর খবর নে না

0
উদ্যোক্তা- সালমা জাহান রিদা

‘আপন ঘরের খবর নে না/একবার আপনারে চিনতে পারলে রে যাবে অচেনা রে চেনা’। প্রত্যেকটা মানুষই অপরিমেয় শক্তির আধার। নিজের মধ্যে যে অপরিসীম শক্তি আছে, তাকে একবার চিনতে পারলে; অনায়সে জগতটাকে বসে আনা সম্ভব। তেমনটাই করে দেখিয়েছেন, কুড়িগ্রামের শিংগির ভিটা এলাকার মেয়ে সালমা জাহান রিদা। শৈশব কৈশোর এবং ছাত্র জীবনের অর্ধেক সময় তিনি কাটিয়েছেন নিজ জন্মস্থানেই। পরবর্তীতে ঢাকায় চলে আসেন এবং নিউ মডেল ডিগ্রি কলেজে ব্যবস্থাপনা বিষয়ে পড়াশোনা শেষ করেন। পড়াশেনার পাশাপাশি চাকরি করতেন তিনি। তবে কিছুদিন পর তিনি কিছু ব্যক্তিগত কারণবসত চাকরি থেকে বের হয়ে আসেন। পরবর্তিতে তিনি এসএমই ফাউন্ডেশন থেকে প্রশিক্ষন নেন। এরই মধ্যে রিদা বৈবাহিক জীবনে পদার্পণ করেন। সংসার এবং বাচ্চা সামলিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছিলেন তিনি।

Untitled design 92

সাংসারিক ব্যস্ততার মাঝেও যখন একটু নিভৃতে বসে নিজের কথা চিন্তা করতেন তখন খারাপ লাগত রিদার। অন্যের ওপর নির্ভরশীল হয়ে থেকে জীবনযাপন করা পছন্দ ছিল না তার। তায় কাজের মাঝে যখনই রিদা সময় পেতেন তখনই ভাবতেন কী করা যায়, কী করলে আমি স্বাবলম্বী হতে পারবো! এগুলো চিন্তা করতে করতে একটা সময় লক্ষ করেন সামাজিক যোগাযোগের পাতায় অনেক নারী পেজ চালু করে বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। সেগুলো দেখে তিনি অনুপ্রাণিত হন। যেহেতু আগে থেকে প্রশিক্ষণ নেওয়া ছিলো তাই খুব একটা চিন্তা করতে হয়নি রিদার।

Untitled design 93

২০১৩ সালের শেষ দিকে ৮ হাজার পুঁজি নিয়ে উদ্যোক্তা জীবনে পা বাড়ান তিনি। শুরুতে নিজহাতে ব্লক, বাটিক, হ্যান্ডপেইন্ট-এর পোশাক তৈরি করতেন। কিছুদিন পর ‘রিডস ফ্যাশন’ নামে একটি পেজ চালু করেন। বর্তমানে সেখানে ব্লক, বাটিকের শাড়ি, থ্রিপিস, বিছানার চাদর-সহ আরো ভিন্ন ধরনের ভিন্ন-ভিন্ন ডিজাইনের পোশাকে সাজানো। সেগুলোর পাশাপাশি কারখানা থেকেও নিজে ডিজাইন দিয়ে বিভিন্ন পণ্য তৈরি করে নেন। শুরুর দিকে নিজে হাতে সবটা সামলাতেন সালমা জাহান রিদা। পরে যখন তার পণ্যের চাহিদা বাড়তে থাকলো তখন কর্মী রাখতে শুরু করলেন। অল্প সময়ে ব্যাপক সাড়া পেয়েছে রিদার রিডস ফ্যাশন। এই উদ্যোগ-এর পাশাপাশি তিনি আরো একটু ভিন্ন চিন্তা আনলেন ‘মাটির তৈজসপত্র’ নিয়ে কাজ করবেন তিনি। তাই নিজ এলাকা রংপুরে যেয়ে ঘুরে ঘুরে অনেক কুমোরের সাথে কথা বলে বিভিন্ন ধরনের তথ্য সংগ্রহ করলেন রিদা। সেখানে কুমোরদের থেকে মাটির বিভিন্ন ধরনের তৈজসপত্র বানিয়ে আনলেন। ২০১৮-এর শেষে সামাজিক যোগাযোগ পাতায় আরো একটি পেজ চালু করলেন ‘আপন ঘর’ নামে যেখানে মাটির তৈজসপত্র নিয়ে কাজ শুরু করেন এর-মধ্য ভর্তা করার জন্য রংপুরের যে শিলনোড়া যা স্থানিয় ভাবে বাটনা পিসনি নামে পরিচিত, সে পণ্য প্রথম অনলাইনে সালমা জাহান রিদা সকলের সামনে আনেন। ‘আপন ঘর’-এ মাটির যাবতীয় তৈজসপত্র, কাঁসার তৈজসপত্র, বিভিন্ন ধরনের শোপিস, নান্দনিক ডিজাইনের ঘড়ি-সহ অসংখ্য পণ্য। বিভিন্ন দেশীয় পণ্যে ভরপুর সালমা জাহান রিদার রিডস ফ্যাশন এবং আপন ঘর।

Untitled design 95

সারাদেশে এবং দেশের গণ্ডি পেরিয়ে লন্ডন এবং কানাডায় রিদার পণ্য স্থান দখল করেছে। চলার পথে কোন প্রতিবন্ধকতার স্বীকার হয়েছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি উদ্যোক্তা বার্তাকে বলে, ‘কিছুদিন আগে আমি একটা মেলায় অংশগ্রহণ করেছিলাম সে মেলা শেষে আরো একটি মেলাতে অংশ নেওয়ার জন্য আমার রিডস ফ্যাশন এবং আপন ঘরের সকল পণ্য দুটি রিক্সায় করে নিয়ে যাচ্ছিলাম একটিতে আমি ছিলাম কিছু পণ্য নিয়ে আরেকটিতে শুধু পণ্য ছিল আমি পেছনের রিক্সায় বসে ফলো করতে করতে যাচ্ছিলাম এমন সময় চোখের পলকে মূহুর্তেই তিনি পণ্যগুলো নিয়ে পালিয়ে যান। সে সময়টাতে আমি একেবারে ভেঙে পড়েছিলাম কারণ ঐ ব্যাগ গুলোতে অনেক পণ্য ছিলো। সে ঘটনাটির পর আমার প্রায় অসুস্থ হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা হয়েছিল। তবুও আমি নিজের মনকে শক্ত করে আবারো যাত্রা শুরু করি। বর্তমানে আমার ৮ জন সহোযোদ্ধা। যারা সর্বদা আমার সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে রিডস ফ্যাশন এবং আপন ঘরের জন্য পরিশ্রম করে চলছেন’।

Untitled design 94

৮ হাজার টাকার পুঁজি আজ লক্ষ লক্ষ টাকা। ভবিষ্যতে তার কর্মক্ষেত্রকে আরো বৃহৎ পরিসরে ছড়াতে চান। হাজারো নারীকে স্বাবলম্বী হওয়ার সুযোগ দিতে চান এমনটিই আগামীর পরিকল্পনা তার। তরুণদের উদ্যেশ্য তিনি বলেন ‘ধৈর্য এবং ইচ্ছা একজন সফল উদ্যোক্তার মূল চাবিকাঠি। এই দুটো নিয়ে আপনারা কাজ শুরু করেন। সফলতা নিজেই ধরা দেবে আপনা-আপনি’।

তামান্না ইমাম
রাজশাহী ডেস্ক ,উদ্যোক্তা বার্তা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here