মাত্র ১২ বছর বয়সে চোখের সামনে দেউলিয়া হয়ে যাওয়া দেখেন। পরবর্তীতে আবার ঘুরে দাঁড়িয়ে ভারতের মধ্যে ১৬ তম (২০০৫) শীর্ষ ধনীদের তালিকায় উঠে আসা এবং ভারতের প্রিমিয়ার এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠা করা। বর্তমানে যার মূল্য প্রায় ৩২০ কোটি টাকা। এই সব কিছু যিনি করে দেখিয়েছেন তিনি হলেন নরেশ গোয়াল। তার জীবনের সেই গল্পটি শুনি – 

১৯৪৯ সালের ২৯ শে জুলাই পাঞ্জাবের সানগ্রুর এক স্বর্ণকারের বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন নরেশ। ছোটবেলা তার বাবা মারা যায়। যখন তার বয়স মাত্র ১১ বছর। তার পরিবার সেই সময় মারাত্মক অর্থনৈতিক সঙ্কটে পড়ে। তাদের বাড়িটি নিলাম করা হয়। এরপর মাকে নিয়ে তিনি মামার বাড়িতে চলে আসেন। তাদের অবস্থা এতটাই খারাপ ছিল যে, তাঁকে প্রতিদিন কয়েক মাইল পথ হেটে স্কুলে যেতে হত। ১৯৬৭ সালে বাণিজ্যে স্নাতক করার পরে নরেশ লেবাননের আন্তর্জাতিক এয়ারলাইন্সে ভ্রমণ ব্যবসায়ে যোগদান করেন।

১৯৭৪ সালে নরেশ তার মায়ের কাছ থেকে ৪০,০০০ টাকা নিয়ে ‘জেটায়ার (প্রাইভেট) লিমিটেড’ শুরু করেন। এর মাধ্যমে তিনি এয়ার ফ্রান্স, অস্ট্রিয়ান এয়ারলাইনস এবং ক্যাথে প্যাসিফিক সংস্থার জন্য টিকেট বিক্রয়ে সহায়তা করতেন। পাশাপাশি বিমানের নির্দেশনা, মূল কাঠামো বিষয়ক এবং ফ্লাইটের সময়সূচী উন্নয়নে কাজ করতেন।

jet air১৯৭৫ সালে ভারতে ফিলিপাইন এয়ারলাইন্সে পরিচালক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন এবং ভারতে বিমান সংস্থাটি বাণিজ্যিকভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করছিল।

১৯৯১ সালে ভারত সরকার উন্মুক্ত আকাশ নীতিমালা চালু করেন। নরেশ এই সুযোগটি কাজে লাগান এবং জেট এয়ারওয়েজ স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেন। এভাবেই শুরু হয়েছিল জেট এয়ারওয়েজের যাত্রা! জেট এয়ারওয়েজ ১৯৯৩ সালের তাদের বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে।

গালফ এয়ার এবং কুয়েতি এয়ার সহ মধ্য প্রাচ্যের কিছু বিনিয়োগকারীদের সমর্থন নিয়ে বিমান সংস্থাটি তাদের কাজ শুরু করেছিল। প্রথমে তারা চারটি বিমান ভাড়া করে। প্রথম বারেই তিনি সফলতা অর্জন করেছিলেন। কেননা তিনি কর্মঠ ছিলেন, নিজেই বিমানের দেখভাল করতেন। এমনকি বিমানের টয়লেট পর্যন্ত পরিষ্কার করতে দ্বিধা বোধ করেননি। পরিচালনার প্রথম বছরেই, জেট এয়ারওয়েজ প্রায় ৭,৩০,০০০ যাত্রী বহন করতে সক্ষম হয়েছিল!

২০০৭ সালে সংস্থাটি ৫০ কোটি টাকার বিনিময়ে “এয়ার সাহারা” কিনেছিলেন এবং পরবর্তীতে এয়ার সাহারা “জেটলাইট (jetlite)” নামে পরিচালিত হয়। বর্তমানে তারা ৫৫ টি উড়োজাহাজ নিয়ে ১ কোটি মানুষকে বহন করছেন যেখানে বেশির ভাগ যাত্রীই আবার মধ্যবিত্ত। সংস্থাটির আয় প্রায় ১৪০ কোটি টাকা এবং ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিমান সংস্থা হিসেবে নাম লিখিয়েছেন।

প্রতিদিন তারা এশিয়া, ইউরোপ এবং উত্তর আমেরিকাসহ বিশ্বজুড়ে ৬৮ গন্তব্যে প্রায় ৩০০ টি ফ্লাইট পরিচালনা করে এবং বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির মূল্য প্রায় ৩২০ কোটি টাকা।

 

মো.হৃদয় সম্রাট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here