বৈশাখ মাস শুরু হতে আর মাত্র কদিন। প্রকৃতির গরম বাতাস আর সূর্যের তাপ জানিয়ে দিচ্ছে চৈত্রের শেষে বৈশাখের আগমনী বার্তা।
বৈশাখ কে নিয়ে মেতে ওঠে সারা দেশ। নানান রঙে সাজায় অনুষ্ঠান আর নানান পার্বনে জাগে বাংলাদেশ। ১২ মাসে ১৩ পার্বনের দেশে বৈশাখের রং সব চাইতে বেশী। মেলা, গান, নাচ, মঙ্গল শোভাযাত্রা, বাউল গান, পালা গান, অতিথি আপ্যায়নে মেতে ওঠে দেশ।

uddoktabarta9
শুভ হালখাতা অনুষ্ঠান হয়। মিষ্টি, মুড়ি, মুড়কী, বাতাসা দিয়ে ব্যবসার ছোট ছোট দোকান পাট, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান সবাই তৎপর হয় পুরনো বকেয়া পরিশোধ করিয়ে নতুন করে সাজান তার ব্যবসা। নতুন স্বপ্নে বিভোর হয় মানুষ। জীর্ন জরা পুরনো যা কিছু সব পেছনে ফেলে নতুন দিনের আবহনে পথ চলা শুরু করে মানুষ।
গ্রাম শহর সব জায়গায় এ আনন্দ খেলে খেলে যায়। বৈশাখে নতুন পোশাক, বাংলা নতুন বছরের নতুন সূর্য নিয়ে আসে নতুন সম্ভাবনার ভোর।
বৈশাখের কয়েকদিন আগে থেকে শুরু করে বৈশাখের কয়েকদিন পর পর্যন্ত চলতে থাকে এমন সব আয়োজন।

uddoktabarta8
রাজধানীর গুলশানে গার্ডেনিয়া গ্র্যান্ড হলে উদ্বোধন হলো “বৈশাখী মেলা- ২০১৯”। ৫ এবং ৬ এপ্রিল দুদিন “বৈশাখী মেলা ২০১৯” এর আয়োজন করেছে গুলশান ইভেন্টজ।
অনলাইনে সব দেশী বুটিক এবং অন্যান্য সব পোশাকের ডিজাইন স্থান পাচ্ছে মেলার ৩৮ টি স্টলে। পুরো মেলাতে আছে বৈশাখী আবহে সাজানো, সকল আয়োজন এক ছাদের নীচে।
দেশীয় উদ্যোক্তাদের পণ্য প্রদর্শনী এবং শো কেস এ এই মেলায় আছে উৎসবের বর্নিল পোশাক, সৌন্দর্য্য সামগ্রী, গৃহসজ্জার সামগ্রী, গহনা, রূপচর্চার সামগ্রী নানান সামগ্রী।

uddoktabarta7
বৈশাখের আগে বৈশাখের আগমনীকে জানান দিতে এবং বৈশাখী রঙে ক্রেতাদের মন রাঙ্গাতেই এই আয়োজন, জানালেন আয়োজকবৃন্দ।

মেলার তত্ত্বাবধানে ছিলেন গুলশান ইভেন্টেজ এর সিইও রজনী ইমতিয়াজ। তিনি বলেন, “মেলায় সকলকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি, মেলায় আসুন, আসলে মেলায় অনেক ভ্যারিয়েশন পাবেন, অনেক ইউনিক পণ্য আছে মেলাতে, এ যেনো বৈশাখ শুরু হওয়ার আগেই বৈশাখের একটা আমেজ”।

মেলা উদ্বোধন করেন শারমিন লাকী। তিনি বলেন “মেলাটি উদ্যোক্তাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ, উদ্যোক্তাদের প্রচারণার জন্য এমন অনেক মেলা আয়োজন করা দরকার। উদ্যোক্তাদের মঙ্গলকামনা করি এবং বসন্তের রঙিন ছটা বয়ে যাক সকলের মনে এই কামনা জানাই”।

ফ্যাশন ডিজাইনার লিপি খন্দকার বলেন, “আমি অবাক হয়েছি দেশীয় উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্য দেখে। তারা এতো উন্নতমানের পণ্যের পসরা সাজিয়েছে মেলায় না আসলে তা বোঝা যাবেনা। তাই সকলকে মেলায় আসার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি “।

এছাড়াও মেলায় উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা চাষী আলম। তিনিও একত্রে এতো দেশীয় উদ্যোক্তাদের অংশগ্রহণ এবং তাদের পণ্য দেখে অনেক প্রশংসা করেন।

uddoktabarta 14তারা প্রতিটি স্টল পরিদর্শন করেন, উদ্যোক্তাদের সাথে কথা বলেন তাদের পণ্য দেখে বিমোহিত হয়ে বলেন বসন্তের আগেই এ যেনো আরেকটি বসন্ত। সবাইকে মেলায় আসার আমন্ত্রণ জানান, মেলাটি উদ্যোক্তাদের জন্য অনেক তাৎপর্যপূর্ণ হবে বলে মন্তব্য করেন। এই মেলাটি বৈশাখের রঙের ছটায় আনন্দিত মুখরিত উদ্যোক্তা, ক্রেতা, সৌন্দর্য প্রিয় ক্রেতা সাধারন সকলের জন্য একটি মিলন কেন্দ্র।

 

 

বিপ্লব আহসান
ছবি- ইকবাল আপন