উদ্যোক্তা- ইসমত জেরিন
Advertisement

সোনার বালা, রুপোর নাকছাবি, হিরের দুল।
ভাবছেন, এতেই আপনি কুল’?
সেটাই মস্ত ভুল।

কারণ দুনিয়া জোড়া নারীর সোনা-রুপা -হীরার ভালবাসায় ভাগ বসিয়ে আপাতত গয়না গাঁটির দুনিয়া কাঁপিয়ে দিচ্ছে হ্যান্ডমেড জুয়েলারি। যেখানে খুশি, যখন খুশি ইচ্ছেমতো বানিয়ে ফেলা যে গয়নার প্রেমে মাতোয়ারা পনেরো থেকে পঁয়ষট্টি।

আজকের উদ্যোক্তা বার্তায় আমরা তুলে আনবো Jeri’s Signature -এর স্বত্বাধিকারী ইসমত জেরিন হ্যান্ডমেড জুয়েলারির কাব্য কথা। উদ্যোক্তা ইসমত জেরিন নিজেকে একজন নারী উদ্যোক্তা হিসেবে পরিচয় দিতে পছন্দ করেন।

উদ্যোক্তা জেরিন এর ছোটবেলা কেটেছে বাবার চাকুরির সুবাদে ময়মনসিংহে। জেরিন খুব ছোটবেলায় ময়মনসিংহের জয়নাল আবেদীন আর্টগ্যালারিতে বিভিন্ন আর্ট কম্পিটিশনে নিয়মিত অংশগ্রহণ করতেন।সেখান থেকে আর্টের প্রতি ভালবাসা, বড় হয়ে সেই ভালবাসাকে কাজে লাগিয়ে আজকে উদ্যোক্তার খাতায় নিজের নাম লিখেছেন। তাই ছোটবেলা থেকে একটা শৈল্পিক পরিবেশ বড় হওয়ায় অনেকখানি প্রভাবিত হয়েছে তার চলার পথের ভবিষ্যৎ।

Advertisement

জেরিন পড়াশোনা শেষ করে আমি একটা চাকুরিতে যোগদান করেন। কিন্তু খুব বেশিদিন তা কন্টিনিউ করা সম্ভব হয়নি। কারন চাকুরির ধরাবাঁধা নিয়ম তার কাছে ভাল লাগেনি। নিজে কিছু করার ইচ্ছা প্রথম থেকেই ছিল। তাই উদ্যোক্তা জেরিন তাঁর এই উদ্যোগ অনেক সমস্যার মধ্যে থেকেই শুরু করেন।

উদ্যোক্তা জেরিন বলেন- “উদ্যোক্তা হওয়ার প্রথম চ্যালেঞ্জ বিনিয়োগ,আমি অল্প কিছু মূলধন নিয়ে ব্যবসা শুরু করি। আমার পণ্য গুলো যেহেতু আমি নিজে তৈরি করি, তাই আমার পরিশ্রম আমাকে বিনিয়োগ বাড়াতে সাহায্য করেছে, যা আজকে আমাকে এই পর্যায়ে নিয়ে এসেছে”। জেরিন মূলতঃ দেশীও হ্যান্ডমেড জুয়েলারি পণ্য নিয়ে কাজ করছেন।

উদ্যোক্তা জেরিন এর ব্যবসার পণ্য বা সেবাগুলো সবই তাঁর নিজের সৃষ্টি। বাংলাদেশী ও দেশীও গহনা গ্রাহকের কাছে পৌছে দেয়াই উদ্যোক্তা জেরিন এর মূল লক্ষ্য।

উদ্যোক্তা জেরিন তার ব্যবসার উদ্যোগের সব সিদ্ধান্ত তিনি নিজেই নিয়ে থাকেন। হ্যান্ডমেড জুয়েলারির সব পণ্য স্টাইল, প্যাটার্ন, ডিজাইন ও কম্বিনেশন সব কিছু উদ্যোক্তা তাঁর নিজস্ব চিন্তা ধারা থেকে তৈরী করে থাকেন। সব ধরনের গ্রাহকদের ক্রয়সীমার মধ্যে উদ্যোক্তা জেরিন তাঁর হ্যান্ডমেড জুয়েলারির সব পণ্যের দাম নির্ধারণ করে থাকেন।

নিজ পণ্য সম্পর্কে উদ্যোক্তা জেরিন বলেন -“আমার প্রতিটা পণ্য আমি নিজের পছন্দ মতো বানাই, তাছাড়া আমি আমার পণ্যের মান বিবেচনায় রাখি এবং সবচেয়ে দরকারী যে ব্যাপার তা হল ভাল পণ্য সঠিক দাম ক্রেতার ক্রয় সীমার মধ্যে রাখি। যার জন্য প্রতিটি ক্রেতা আমার কাছে আসতে আগ্রহী হয়”।

জীবনের অন্য অনেক কিছু উদ্যোক্তা জেরিন তাঁর সৃষ্টি, তাঁর পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশী ও দেশীও গহনা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। কারণ এটাই তাঁর একমাত্র পাথেয়। উদ্যোক্তা ইচ্ছা পোষণ করেন, দেশীও গহনা বলতে- “Jeri’s Signature” একটি আন্তর্জাতিক মান অর্জন করে বিশ্বব্যাপী পরিচিতি পাক।

ডেস্ক রিপোর্ট, উদ্যোক্তা বার্তা

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here